সেবা বাণিজ্যেও মন্ত্রণালয়ের অনুমতি লাগবে

টিবিটি ডেস্ক
টিবিটি রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২ এপ্রিল ২০২৪ ০১:১৬ এএম

পণ্য আমদানি-রফতানির মতো সেবাকেও বৈদেশিক বাণিজ্যের নীতিমালার আওতায় এনে নতুন আইন করার প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে সরকার। নতুন আইনানুযায়ী, সেবা আমদানি ও রফতানির ক্ষেত্রে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগবে। গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে ‘আমদানি ও রফতানি আইন, ২০২৪’-এর অনুমোদন দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন।  

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘‌আমদানি ও রফতানি নিয়ন্ত্রণ ও নিষিদ্ধকরণের ১৯৫০ সালের আইন আছে। পুরনো আইনগুলো পর্যায়ক্রমে যুগোপযোগী করার নির্দেশনা আছে। এজন্য নতুন আইনের খসড়া করা হয়েছে।’ 

এজন্য নতুন আইনের খসড়া করা হয়েছে। বিদ্যমান আইনের মতো এবার নিয়ন্ত্রণ শব্দটি আর রাখা হচ্ছে না। এ আইন হওয়ার পর সহজে সেবা পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা।

তিনি বলেন, ‘‌আগের আইনে নতুন করে কিছু বিষয় সংযুক্ত করা হয়েছে। আগে শুধু পণ্যের কথা বলা ছিল। এখন বাণিজ্যিকভাবে সেবা কার্যক্রমকেও এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সেবা আমদানি ও রফতানির ক্ষেত্রে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগবে। এ আইনের আওতায় সেবাকে যুক্ত করা হয়েছে। কমোডিটির পাশাপাশি সার্ভিসকে যুক্ত করা হয়েছে।’

খসড়া আইনে থাকা সেবার সংজ্ঞা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‌ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনের অধীন জেনারেল অ্যাগ্রিমেন্ট অন ট্রেড ইন সার্ভিস চুক্তিতে বর্ণিত সংজ্ঞা অনুযায়ী যেকোনো সেবা। সরকার কোনো পণ্য বা সেবা নিয়ন্ত্রণ বা নিষিদ্ধ করতে পারবে। এ সম্পর্কিত আদেশ ও বিধিবিধান প্রণয়ন করতে পারবে। আমদানি ও রফতানি নীতি প্রণয়নের দায়িত্ব বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে দেয়া হয়েছে।’ এ আইনে মাত্র ১৬টি ধারা থাকছে জানিয়ে সচিব বলেন, ‘‌বিধিতে আরো বিস্তারিত থাকবে।’